প্রকল্প Phase-2

প্রকল্প Phase-2

ভূমিকা :
বিভিন্ন পেশাজীবি গোষ্ঠীর জন্য বিভিন্ন সময়ে একাধিক আবাসন প্রকল্প গড়ে তোলা হয়েছে। এদের মধ্যে বিশেষ ভাবে উল্লেখযোগ্য হচ্ছে ‘ডিফেন্স অফিসার্স্ হাউজিং সোসাইটি’ বা সংক্ষেপে ‘ডিওএইচএস‘।পুলিশ অফিসারদের জন্য সম্প্রতি এমন একটি আবাসন প্রকল্প তৈরি করা হয়েছে। এই প্রকল্পের নাম ‘পুলিশ অফিসার্স্ হাউজিং সোসাইটি’ বা সংক্ষেপে ‘পিওএইচএস’। এর লোকেশন ৩০০ ফুট প্রশস্ত পূর্বাচল সংযোগ সড়কের উত্তরপাশে খিলক্ষেত নামক এলাকায়।

সীমিত আয়তনের কারণে এই প্রকল্পে খুবই কম সংখ্যক পুলিশ কর্মকর্তা এখানে প্লট পেয়েছেন। কিন্ত এই সৌভাগ্য সবার হয়নি। ‘পিওএইচএস’-এ প্লট পাওয়া কর্মকর্তার চেয়ে প্লট না পাওয়া কর্মকর্তার সংখ্যা অনেক অনেক বেশী।

‘পিওএইচএসে’ প্লট না পাওয়া পুলিশ বাহিনীর এসব সদস্যদের জন্য আনন্দ পুলিশ পরিবার কল্যান বহুমুখী সমবায় সমিতির ব্যানারে এবং পুলিশ অফিসারদের উদ্যোগেই নতুন একটি প্রকল্প গড়ে তোলা হচ্ছে। এর নাম ‘আনন্দ হাউজিং সোসাইটি’। প্রকল্পটির অবস্থান পূর্বাচল উপশহরের ৩নং সেক্টরের ঠিক পাশে। ‘আনন্দ পুলিশ হাউজিং সোসাইটি’তে এখন প্লটের বরাদ্দ প্রদান করা হচ্ছে। পুলিশ বাহিনীতে কর্মরত অথবা সাবেক কর্মকর্তাগন এবং তাদের আত্মীয়গন এখানে প্লটের জন্য আবেদন করতে পারবেন। এছাড়াও সমাজে প্রতিষ্ঠিত অন্যান্য পেশাজীবিগনের জন্য এই প্রকল্পে নির্দিষ্ট সংখ্যক প্লটের কোটা রাখা হয়েছে।

‘আনন্দ পুলিশ হাউজিং সোসাইটি’ অত্যান্ত সু-পরিকল্পিত একটি আবাসন প্রকল্প। সুস্থ এবং আধুনিক জীবন যাপনের জন্য এই প্রকল্পে প্রয়োজনীয় স্কুল-কলেজ, খেলার মাঠ, উপাসনালয়, হাসপাতাল, ওয়াটার বডি, রাস্তাঘাট, বর্জ্য ও পয়ঃনিষ্কাশন ব্যবস্থা রাখা হয়েছে। পুলিশ কর্মকর্তা এবং সমাজের অন্যান্য প্রতিষ্ঠিত পেশাজীবিদের সমন্বয় আনন্দ পুলিশ হাউজিং সোসাইটি অচিরেই ঢাকার একটি আদর্শ আবাসিক এলাকা হিসেবে বিবেচ্য হবে। নির্মল আনন্দময় জীবন যাপনের জন্য এই সোসাইটিতে আপনাকে জানাই স্বাগতম।

প্রকল্প সম্পর্কিত সাধারণ তথ্যাদি :

প্রকল্পের অবস্থানঃ পূর্বাচল উপশহরের ৩ নং সেক্টরের লাগোয়া দক্ষিন পাশে প্রকল্পের অবস্থান। ৩০০ ফুট সড়ক থেকে এর দূরত্ব মাত্র ৫০০ মিটার। এয়ারপোর্ট রোড থেকে প্রকল্পের দূরত্ব ৭ মাইল। (১০ মিনিট ড্রাইভ)

প্লটের আয়তনঃ প্রতিটি প্লটের আয়তন ৩ কাঠা, ৪ কাঠা, ৫ কাঠা, ও ১০ কাঠা।

প্রকল্পের হস্তান্তরঃ ২০২৪ সালে এই প্রকল্পে‘র হস্তান্তর করা হবে। তবে গ্রেস পিরিয়ড হিসেবে ১ বছর সময় থাকবে।

প্লটের দাম মূল্য পরিশোধ পদ্ধতিঃ প্লটের মূল্য জমির মূল্য পরিবর্তনের কারণে পরিবর্তনশীল। যা সমিতির কার্যনির্বাহী পরিষদ কর্তৃক সময় সময়ে নির্ধারণ করা হয়। প্রতিটি প্লটের বিপরীতে ১ লাখ টাকা করে প্রদান করে আবেদন করতে হবে। আবেদন অনুমোদন হলে পরবর্তী ১৫ দিনের মধ্যে প্লটের মোট মূল্যের ২৫% ডাউনপেমেন্ট হিসেবে প্রদান করতে হবে

প্লটের মূল্যের সাথে অন্তর্ভুক্ত বিষয় সমূহঃ জমির দাম, জমির উন্নয়ন খরচ এবং রাস্তা নির্মাণের খরচ জমির মূল্যের সাথে অন্তর্ভুক্ত আছে।

প্রকল্পের প্লট এবং রাস্তা, মাঠসহ অন্যান্য উপকরণের অনুপাতঃ আবাসন বিধিমালা অনুযায়ী যে কোন আবাসন প্রকল্পে ৪০ শতাংশ জায়গা রাস্তা, ড্রেন, বর্জ্য ও পয়ঃনিস্কাশন ব্যবস্থা, সামাজিক ও বাণিজ্যিক সুবিধার জন্য রাখতে হয়। অবশিষ্ট ৬০ ভাগ আবাসন প্লট তৈরী করা যায়। আনন্দ প্রকল্প এলাকায় এই বিধান পুংখানুপুংখভাবে অনুসরণ করা হয়েছে।
কারা প্লটের জন্য আবেদন করতে পারবেনঃ ‘আনন্দ পুলিশ হাউজিং সোসাইটি’ মূলত পুলিশ অফিসারদের আবাসন সমস্যা সমাধানের জন্য পুলিশ অফিসারদের মাধ্যমে বাস্তবায়িত একটি প্রকল্প। তবে প্রকল্পের পরিপূর্ণতার জন্য অন্যান্য পেশাজীবি এবং প্রতিষ্ঠিত ব্যাক্তিদের জন্যও নিদির্ষ্ট সংখ্যক প্লট বরাদ্দের সুযোগ রাখা হয়েছে।


প্রকল্পে যেসব সুবিধাদি থাকছে :

সিবিডি, কমিউনিটি সেন্টার, কর্ণার শপ, প্রাথমিক স্কুল, উচ্চ-মাধ্যমিক স্কুল, কলেজ, হাসপাতাল, কাঁচা বাজার, মসজিদ, মন্দির, চার্চ্, প্যাগোডা, পার্ক, খেলার মাঠ, সুবিশাল লেক, পুকুর, পাওয়ার ষ্টেশন, শপিং মল, ওয়াটার ট্রিটমেন্ট প্ল্যান্ট, বর্জ্য ও পয়ঃনিষ্কাশন এবং স্যুয়ারেজ ট্রিটমেন্ট প্ল্যান্ট, পর্যাপ্ত প্রশস্ত রাস্তা, অন্যান্য সামাজিক ও বাণিজ্যিক সুবিধাদি….

আমাদের এ উদ্যোগে শরীক হওয়ার জন্য পুলিশ বিভাগে কর্মরত সকল সদস্যসহ অবসরপ্রাপ্ত পুলিশ সদস্য, পুলিশ পরিবারের সদস্য এবং শুভাকাংখী বন্ধুদের সাদর আমন্ত্রণ জানাচ্ছি।